রবিবার, ১ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

 

দয়ামীর ইউনিয়নের সোয়ারগাঁও এলাকায় স্কুল শিক্ষিকা ও গৃহকর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার



ডেইলি ফেঞ্চুগঞ্জ ডটকম : সিলেটের ওসমানীনগরের দয়ামীর ইউনিয়নের সোয়ারগাঁও এলাকায় এক স্কুল শিক্ষিকা ও তার বাড়ির কাজের ছেলের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার রাত ১২টার দিকে ঘরের বাথরুমের জানালা ভেঙে ওসমানীনগর থানা পুলিশ স্কুল শিক্ষিকা তপতী রানী দে (৬০) ও তার বাসার কাজের সহযোগী গৌরাঙ্গ বৈদ্যের মরদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়- ওসমানীনগরে দয়ামীর ইউনিয়নের সোয়াইরগাওর এলাকার বাসিন্দা তপতী রানী দে সোয়াইরগাঁও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা এবং ডা. বিজয় ভুষন দের স্ত্রী।

শনিবার রাতে বাথরুমের জানালা দিয়ে প্রতিবেশিরা গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ বৈদ্যের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে রাত ১২টার দিকে ওসমানী নগর থানার উপ পরিদর্শক নাজমুল হুদার বাসার বাথরুমের জানালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে প্রবেশ করে মেঝেতে তপতী রানী দে’র গলাকাটা মরদেহ ও পাশে গৌরাঙ্গ বৈদ্যর ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়- তপতী রানী দে’র স্বামী ও ছেলেমেয়ে চিকিৎসক। স্বামী ও ছেলের সাথে তিনি সোয়াইরগাঁও গ্রামের বাড়িতে থাকেন।

শনিবার বিকেলে স্বামী ও ছেলে প্রাইভেট প্র্যাকটিসে গিয়েছিলেন। এসময় বাসায় কেবল তপতি ও গৌরাঙ্গ ছিলেন। সন্ধ্যার পর কোনো একসময়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ওসমানী নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন- আমিসহ পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। কি কারণে ঘটনাটি ঘটেছে তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন