বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দেশে আটকা পড়া কুয়েত প্রবাসীদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করবেন নব নিযুক্ত রাস্ট্রদূত



রউফ মাওলা :: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার নিয়োজিত কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের নব নিযুক্ত রাস্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান বলেছেন, করোনার কারণে দেশে গিয়ে আটকা পড়া প্রবাসীদের ফিরিয়ে আনতে তিনি সর্বাত্তক চেস্টা চালিয়ে যাবেন। গতকাল ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং বিকাল ৪ টায় কুয়েত বাংলাদেশ দূতাবাসে স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়ে তিঁনি এ কথা বলেন।
অনুস্টানে উপস্থিত ছিলেন- দূতাবাসের ডিফেন্স অ্যাটাচি মেজর জেনারেল নাসির উদ্দিন। গণমাধ্যম কর্মিদের মধ্যে ঊপস্থিত ছিলেন- বাংলা টিভির কুয়েত প্রতিনিধি ও ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া ফোরাম (IMF) কুয়েতের সাধারণ সম্পাদক আ হ জুবেদ, মাই টিভির কুয়েত প্রতিনিধি আল আমিন রানা, আর টিভির কুয়েত প্রতিনিধি মো: জালাল উদ্দিন, গাজি টি কুয়েত প্রতিনিধি মহিউদ্দিন লিটন, জয় যাত্রা টিভির কুয়েত প্রতিনিধি নাসরিন আক্তার মৌসুমী, মাসিক মরুলেখার যুগ্ম সম্পাদক ও ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া ফোরাম (IMF) কুয়েত এর সহ সভাপতি নাসির ঊদ্দিন খোকন, মাসিক মরুলেখার সহ সম্পাদক ও ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া ফোরাম (IMF) এর কুয়েতের বার্তা সম্পাদক মাহমুদুর রহমান মাহমুদ, মাসিক মরুলেখার সম্পাদক ও ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া ফোরাম (IMF) কুয়েতের সভাপতি রউফ মাওলা, ডিভিসি টিটির কুয়েত পিরতিনিধি মোহাম্মদ হেফজো মিয়া ও অন্যান্য আরও টিভি ও গণমাধ্যম কর্মিরা।
রাস্ট্রদূত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্ন অত্যন্ত মনোযোগ দিয়ে শুনেন ও উত্তর দেন। সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময়ে সময় আবারও তিঁনি অবৈধ ভিসা ব্যবসায়িদের ব্যপারে সতর্ক করে দেন। তিনি বলেন, করোনার কারণে দেশে গিয়ে যারা আটকা পড়েছে তাদের ফিরিয়ে আনার জন্য সব ধরনের প্রচেস্টা চানালো হবে। কোন কারণে ওরা ফিরে আসতে না পারলে যাদের বিভিন্ন কোম্পানীতে ২০/২৫ বৎসরের সার্ভিস মানি পাবে এবং যাদের ব্যবসা বানিজ্য আছে তাদের ঐ সবের ক্ষতিপূরন আদায়ের জন্য দূতাবাসের মাধ্যমে চেস্টা চানালো হবে। তিঁনি বলেন, প্রবাসীদের বিভিন্ন ধরনের সুবিধা প্রদানের জন্য খুব শীগ্রই দূতাবাসে “ Help-Line” সেবা চালু করা হবে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিঁনি বলেন, ইতিমধ্যে তিঁনি শ্রমিকদের বিভিন্ন সমস্যার কথা অবহিত হয়েছেন – এর মধ্য শ্রমিকদের পুরা বেতন না দেওয়া, কোম্পনীর ম্যানেজার-সুপারভাইজাদের বিভিন্ন ধরনের দূর্ণীতি, শ্রমিকদের উপর অযাচিত নির্যাতন, দূতাবাসের বিভিন্ন দূর্ণীতির ইত্যাদি সব কিছুই নিরসনে তিঁনি পদক্ষেপ নেবেন বলে উপস্থিত সাংবাদিকদের আশ্বাস দেন।
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কেন কুয়েত থেকে প্রবাসী বাংলাদেশীদের বহন না করে কুয়েত এয়ারওয়েজকে বাংলাদেশ সরকার অনুমতি দিল, কেন সরকার কুয়েত এয়ারওয়েজকে আমাদের এয়ারপোর্ট ব্যবহারের অনুমতি দিয়ে দেশের অপূরনীয় আর্থিক ক্ষতি করল- সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে রাস্ট্রদূত বলেন, এ পর্যন্ত ৫০০ হাজার বাংলাদেশী যাত্রী কুয়েত এয়ার ওয়েজে বহন করছে, আরও ৫ টি ফ্লাইট ওদের রিজারভেসনে আছে ; এ ৫টি ফ্লাইট শেষ হলে আমি এ ব্যপারে হস্তক্ষেপ করব কারণ অতীতে কি হয়েছে তা আমি বিবেচনায় নেব না। আমাকে একটু সময় দিতে হবে।
সাংবাদিকরা রাস্ট্রদূতকে অনুরোধ করেন, সাংবাদিকতার সুবিধার জন্য দূতাবাস থেকে সংবাদ কর্মিদের জন্য একটি আই ডি কার্ড দেওয়া হয়- অনুরোধটা তিঁনি বিবেচনায় করে দেখবেন বলে জানান। সর্বোপরি সাংবাদিকদের তিঁনি অনুরোধ করে বলেন, এমন কোন সংবাদ আপনারা পরিবেশন করবেন না, যা দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে, নস্ট করে । তিঁনি সব ব্যপারেই সবার সহমর্মিতা ও সহযোগিতা কামনা করেন।
সংবাদটি শেয়ার করুন