বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

 

দক্ষিণ সুরমার ইজতেমা মাঠে জুমার নামাজ আদায়ে মুসল্লিদের ঢল…



দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধিঃ দক্ষিণ সুরমার মোল্লারগাঁও ইউনিয়নের সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়কে পাশে লতিপুর-খিদিরপুর এলাকার চলছে তিনব্যাপি জেলা ইজতেমা। ইজতেমার ওই মাঠেই আজ জুমার নামাজ আদায় করা হবে। জুমার জামাতে অংশ নিতে জেলা ইজতেমার মাঠের দিকে ছুটছেন মুসল্লিরা, এতে প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা জুমার নামাজ আদায় করবেন।

শুক্রবার সকাল থেকেই ইজতেমা মাঠগামী মুসল্লিদের ঢল নেমেছে। যে যেভাবে পারছেন ছুটছেন ইজতেমা মাঠে। পর্যাপ্ত যানবাহন না থাকায় ট্রাক-মিনি ট্রাকসহ বিভিন্ন ভাবে তারা সেখানে যাচ্ছেন। ফলে ইতিমধ্যেই মূল প্যান্ডেল ছাড়িয়ে বাহিরেও অবস্থান নিয়েছেন মুসল্লিরা। যে যেখানেই স্থান পাচ্ছেন সেখানেই জায়নামাজ বিছিয়ে বসে পড়ছেন। পাঁচ লাখেরও বেশি মুসল্লি জুমার নামাজ আদায়ে অংশ নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জুমার নামাজ শেষে আল্লাহর সন্তুষ্টি, পরকালীন মু্ক্তি ও বিশ্বশান্তি কামনায় মহান আল্লাহর দরবাবে মোনাজাত করা হবে।

৩২ বছর পর বৃহস্পতিবার ফজর আম বয়ানের মাধ্যমে শুরু হয় তাবলীগ জামাতের সবচেয়ে বড় আয়োজন জেলা ইজতেমা। এতে অংশ নিয়েছেন বিভিন্ন স্থান থেকে লক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। তাছাড়া বিদেশি অতিথিরাও উপস্থিত রয়েছেন ইজতেমায়। শনিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

ইজতেমা উপলক্ষে সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে সাড়ে ১৫ লক্ষ বর্গ ফুট আয়তনের মূল প্যান্ডেল রয়েছে। বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত মুসল্লিদের সুবিধার্তে ১১ টি খিত্তা ভিত্তিক এলাকায় ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া বিদেশী অতিথিদের জন্য তিনটি আলাদা পাকা শেড নির্মাণ করা হয়েছে।

ইজতেমার ময়দানে নিরাপত্তায় আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে সেখানে একটি ক্যাম্প, কন্ট্রোল রুম ও ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে। র্যা বের পক্ষ থেকেও খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম।

টঙ্গির তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লীদের উপস্থিতি বেশি হওয়ায় এবার ৩২ জেলার অংশগ্রহণে তুরাগ তীরে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া এই ৩২ জেলা জেলাভিত্তিক ইজতেমা পালন করবে। এরই ধারাবাহিকতায় সিলেটেও বৃহস্পতিবার থেকে তিন দিনব্যাপী ইজতেমা শুরু হয়েছে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন