মঙ্গলবার, ৩ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

 

ঘন ঘন ভূমিকম্পে আতঙ্কিত সিলেটবাসী



ডেইলি ফেঞ্চুগঞ্জ ডটকম : সিলেটে ৫ বার ভূমিকম্প হওয়াতে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। লোকজন দৌড়াদৌড়ি করে বাইরে বের হতে দেখা গেছে। কেউ কেউ বহুতল ভবন ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসেন। আবহাওয়া অফিসের দেয়া তথ্যমতে এ পর্যন্ত ৫ বার এ ভুমিকম্প অনুভূত হয়েছে।

ভূমিকম্পগুলোর উৎপত্তিস্থল সিলেট। এখানে রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ১। সর্বশেষ বেলা ২টায় আরেক দফা ভূমিকম্প হয়।

আজ শনিবার (২৯ মে) সকাল ১০টা ৩৬ মিনিটে, ১০টা ৫১ মিনিটে, বেলা সাড়ে ১১টায় এবং দুপুর ২ টার দিকে এসব ভূমিকম্প অনুভূত হয়।

সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তরের প্রধান আবহাওয়াবিদ সাঈদ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন- ভূমিকম্পগুলোর উৎপত্তিস্থল সিলেট। এখানে রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ১। সর্বশেষ বেলা ২টার দিকে আরেক দফা ভূমিকম্প হয়েছে।

আজ শনিবার ভূমিকম্পের পর আবারো সিলেটে ভূমিকম্প আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। বহুতল ভবনের শহর সিলেট আগে থেকেই ভূমিকম্পের ঝুঁকির মুখে। এখানে ৬ থেকে ৭ মাত্রার ভূমিকম্প হলে অনেক ক্ষয়ক্ষতি হবে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের। ইদানীং ঘন ঘন ভূমিকম্পের কারণে এই আশঙ্কা আরো তীব্র হচ্ছে।

যে সব ভবন ভূমিকম্পের মারাত্মক ঝুঁঁকিতে রয়েছে- সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার কার্যালয়, কাস্টমস অফিস, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়, সিটি মার্কেট, সিলেট সাব পোস্ট অফিসের ফরেন রেমিটেন্স ভবন প্রভৃতি। এসব সরকারি ভবন ছাড়াও সিলেট মহানগরীতে এশিয়া মার্কেট, নেহার মার্কেট, সুরমা মার্কেট, মধুবন মার্কেট, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়, মিতালী মার্কেট, রহমান ম্যানসনসহ অসংখ্য-অগণিত ব্যক্তিমালিকানাধীন সুউচ্চ ভবন ভূকম্পের ঝুঁকিতে রয়েছে।

১৮৯৭ সালে সিলেটসহ আসামে বড় ধরনের ভূমিকম্প হয়েছিল। ওই ভূমিকম্পে সিলেট ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর থেকে সিলেটে বেলবেটনের ঘর (বিশেষ ঘর) তৈরি করা হতো। প্রতি শত বছর পর সিলেটে ভূমিকম্প হতে পারে বলে গেল কয়েক বছর ধরে বলে আসছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু সিলেটে সে ব্যাপারে কোনো সতর্কতা নেই।

সূত্রঃ সিলেট প্রতিদিন

সংবাদটি শেয়ার করুন