বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

 

”অত্যাধুনিক শাহজালাল সারকারখানাটি একটি লাভজনক কারখানায় নিয়ে যেতে হবে”



তাজুল ইসলাম বাবুলঃ জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ন সম্পাদক এবং সেক্টর কপোরেশন শ্রমিক কল্যান পরিষদের কেন্দ্রীয় আহবায়ক প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা খান সিরাজুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু দেশের ৬৬৪টি কল কারখানাকে জাতীয় করন করে গিয়েছিলেন কিন্তু বিএনপি জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় এসে সিংহভাগ কারখানা বন্ধ করে দিয়ে শ্রমিকদের দুরহ অবস্থায় ফেলে দেয়। বর্তমান সরকার ফেঞ্চুগঞ্জের মাটিতে গ্যাসের অভাব হবে না বলেই কারখানাটি এখানেই স্থাপন করেছে। সিলেটের মাটিতে অত্যাধুনিক কারখানাটি উৎপাদনের মধ্য দিয়ে একটি লাভ জনক কারখানায় পরিনত হবে।

তিনি বলেন কারখানা শ্রমিকদের মজুরী কমিশন বাস্তবায়নে ৩৭ দফা প্রস্তাবনা কমিশনে জমা দেয়া হয়েছে। প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের অপেক্ষায় রয়েছে। শ্রমিকদের দাবী মানা না হলে আবারো দাবী আদায়ে রাস্তায় নামার প্রস্তুতি নিতে হবে।

গত ৩০ জানুয়ারী ফেঞ্চুগঞ্জ শাহজালাল সারকারখানার প্রথম শ্রমিক ইউনিয়নের অভিষেক এবং সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা গুলো বলেছেন।

সম্বর্ধনা ও অভিষেক অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ফারুক শাহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল সারকাখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ক্যামিকেল ইন্ডাষ্টিজ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি এম. কামাল উদ্দীন, ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক শেখ নুরুল হাদী, ফেডারেশনের কার্য্যকারী সভাপতি ফরিদ উদ্দীন, ফেডারেশনের সহ-সভাপতি নাসির উদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মাসুদ, শাহজালাল সারকারখানার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ছালেহ আহমদ, সাধারন সম্পাদক রায়হান খন্দকার সহ সম্বর্ধিত নেতৃবৃন্দ।

স্থানীয় শ্রমিক নেতা জাকির হোসেন ফারুকের পরিচালনার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করেন সিরাজুল ইসলাম ফারুক। বক্তব্য রাখেন অদক্ষ শ্রমিক নেতা মামুন আহমদ নেওয়াজ, উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আব্দুল আওয়াল কয়েছ, নাজমুল হাসান হিরু।

নবগঠিত শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দকে শপথ বাক্য পাঠ করান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি খান সিরাজুল ইসলাম। বিভিন্ন দাবী দাওয়া সম্বলিত মানপত্র পাঠ করেন শ্রমিক নেতাজাকির হোসেন ফারুক।

অতিরিক্ত শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দকে ক্রেষ্ট প্রদান করেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি এম. কামাল উদ্দীন ও শেখ নুরুল হাদী।

পরে এক মনোঞ্জ সাংস্কৃাতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট শিল্পী লাভলী দেব, শংকরী, প্রান্ত দেব প্রমূখ।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন