শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

লুঙ্গি খুলে উলঙ্গ হয়ে যৌন নির্যাতনের অভিযুক্তরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন!



ডেইলি ফেঞ্চুগঞ্জ ডটকম : লুঙ্গি খুলে উলঙ্গ হয়ে যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদে ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় ভিকটিম অভিযোগ করার কারণে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন অভিযুক্তরা।

নির্যাতিত পরিবারের সদস্যদের মধ্যে অভিযোগকারী ইউনুস আলী বলেন- আমি বাড়িতে না থাকার সুবাদে আমার আপন ভাই ইউসুফ আলী সহ তার তিন ছেলে আমার রুপনকৃত গাছপালা এবং বসতভিটের মাটি কাটতে থাকে তারা এবং এর প্রতিবাদ করতে গেলে আমার স্ত্রী তখন তারা খারাপ ভাষায় গালিগালাজ সহ আমার স্ত্রী ও মেয়েকে লুঙ্গি খুলে উলঙ্গ হয়ে যৌন নির্যাতনের হুমকি দেয় ইউসুফ আলীর ছেলে রহিম উদ্দিন।
পরে এবিষয়ে আমি ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করি আর অভিযোগ পেয়ে ফেঞ্চুগঞ্জ থানার এস আই দিলু ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে যাবার পরে অভিযুক্তরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে তারা এখন আমাকে প্রাণে মারার এবং আমার ছেলে মেয়েদের কেও বিভিন্ন ভাবে খারাপ ভাষায় গালিগালাজ সহ আমার ঘরের সামনে রাতে দা লাঠি এবং দেশিও অস্ত্র নিয়ে ঘুরাফেরা করে তাদের ভয়ে আমি এবং আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় আছি।
তিনি বলেন বিগত সোমবার রাতে ফেঞ্চুগঞ্জ থানার এস আই দিলু ঘটনাস্থলে এসে অভিযুক্তদের থানায় যেতে নির্দেশ দিয়ে যাওয়ার পরে অভিযুক্তরা রাত আনুমানিক ২ টার সময় আমার ঘরের দরজার মধ্যে বাড়াবাড়ি সহ আমাকে বস্তা বন্দী করে লাস গুম করার হুমকি ধামকি সহ আমার পরিবারের সবাইকে খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে।
এবিষয়ে আমি রাতে আবারো এস আই দিলু স্যারকে ফোন দিলে তিনি বলেন আগামীকাল থানায় আসেন পরে আমি তাদের ভয়ে অসহায় হয়ে রাত ৩ টার দিকে  ইউপি সদস্য জালাল উদ্দিন লাল মিয়াকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি এবং পরদিন এঘটনা ঘিলাছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাজী লেইছ চৌধুরী সহ স্থানীয় ইউপি সদস্যদের জানীয়েছি।
সংবাদটি শেয়ার করুন