বুধবার, ৩ মার্চ ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জেলা পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে কয়েস সহ ৪ জনের মনােনয়ন বৈধ ঘােষণা



আহাদ আম্বিয়া খোকন :: সিলেট জেলা পরিষদ ৩ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে সাবেক ছাত্রনেতা ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল কয়েসসহ চার জন প্রাথীর মনােনয়নপত্র বৈধ হয়েছে।
গত জেলা পরিষদ নির্বাচনে এই ওয়ার্ড থেকে সদস্য প্রার্থী ছিলেন আব্দুল আউয়াল কয়েস ও নুরুল ইসলাম ইছন। কিন্তু নির্বাচনে আব্দুল আউয়াল কয়েস ও নুরুল ইসলাম ইছন সমান সমান ভোট হয়ায় তৎকালীন জেলা প্রশাসন ২জন প্রার্থীর মধ্যে লটারি করে নুরুল ইসলাম ইছন জয়ী হন। প্রায় চার বছর দায়িত্ব পালন করেন। সম্প্রতি সিলেট জেলা পরিষদ ৩ নং ওয়ার্ডের সদস্য নুরুল ইসলাম ইছন মারা যাওয়ায় এই ওয়ার্ডের সদস্য পদ পদটি শুন্য হয়।
গতকাল শনিবার ( ২৬ সেপ্টেম্বর ) দুপুরে সিলেট নির্বাচন অফিসের কার্যালয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ( উপ – সচিব ) ফয়সল কাদের প্রার্থীদের মনােনয়ন যাচাই – বাছাই কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন।
দনারাম হাই স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা সরকারি শিক্ষা কমিটির সদস্য আব্দুল আওয়াল কয়েস বলেন- আমার বাবা মরহুম আবুল কালাম লেদু মেম্বার গত ২৬বছর ২নং মাইজগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার হিসাবে জনগণের খেজমত করছেন অমৃত্য পর্যন্ত। আমিও আপনাদের খেদমত করতে চাই। যদি নির্বাচিত হই সিলেট জেলা পরিষদ থেকে ৩নং ওয়ার্ডের যে বরাদ্দ পাব স্থানীয় সংসদ সদস্য জননেতা মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মহদোয়ের পরামর্শ এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় মেম্বার বৃন্দের সমন্বয়ে উন্নয়ন করবো ইনশাআল্লাহ।
গত নির্বাচনে সম্মানিত ভোটারা সমর্থন দিয়ে আমাকে এগিয়ে নিয়েছিলেন ইনশাআল্লাহ এবারের নির্বাচনে সকলের সহযোগিতা নিয়ে জয়ী হতে চাই। আমি সকলের কাছে সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করি।
অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন- শামীম আহমেদ চৌধুরী, খালেদ মাহমুদ ও জাহেদ হাসান । আগামী ৪ অক্টোবর প্রতীক বরাদ্দ ও ২০ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
সংবাদটি শেয়ার করুন